এই শীতে ত্বক এবং চুলের যত্নে জবা ফুলের ব্যাবহার

2017-10-26 রূপচর্চা

আমরা সকলেই জবা ফুল চিনি আসলে আমরা অনেকেই জানিনা জবা ফুলের উপকারিতা ও এর প্রকৃত ব্যবহার অনেকে মনে করেন জবাফুল শুধুমাত্র ফুল কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এর কিন্তু বহুবিধ ব্যবহার রয়েছে । 

এবং বর্তমান সময় দেখা যায় যে বিভিন্ন ধরনের শ্যাম্পু উৎপাদনকারী কোম্পানি এবং বিভিন্ন ফেস ওয়াস এবং বিভিন্ন রূপচর্চার প্রসাধনী প্রস্তুত কোম্পানিগুলো জবা ফুল কে ব্যবহার করছে তাদের প্রসাধনী তৈরি করতে। কিন্তু কেন ব্যবহার করছে তাই আসুন আজকে জেনে নেই জবা ফুলের বিভিন্ন কার্যকারিতা।

১। ত্বকের যত্নে জবা ফুলঃ আপনার মুখে যদি যেকোনো ধরনের দাগ ছোপ ছোপ দাগ অথবা খসখসে ভাব থাকে তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে জবা ফুল বেটে সামান্য পরিমাণ মধু মিশিয়ে এটা আপনার মুখে লাগান এবং ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন এভাবে সপ্তাহে একদিন পর পর আপনি করতে পারেন অথবা নিয়মিত করতে পারেন । নিয়মিত করলে তাহলে নিঃসন্দেহে বলা যায় আপনার মুখের যেকোনো ধরনের দাগ চলে যাবে এর পাশাপাশি আপনার মুখ হবে লাবন্যময় খসখসে ভাব থাকবে না তাই শীতে রূপচর্চায় জবাফুল এবং মধু খুবই কার্যকরী একটি উপাদান ।আপনি আপনার ত্বকের সঠিক উজ্জ্বলতা বজায় থাকতে ব্যবহার করতে পারেন।

 

২। চুলের যত্নে জবা ফুলঃ অনেকেই হয়তো জানেন না যে চুলের যত্নে জবা ফুল কিভাবে ব্যবহার করতে হয় বিভিন্ন শ্যাম্পু এবং চুলের প্রসাধনী তৈরির কোম্পানিগুলো এখন ব্যাপকভাবে জবা ফুলের ব্যাবহার করছে কারণ হচ্ছে জবাফুল এমন এক ধরনের টস্কিন থাকে যে টক্সিন চুলের গোড়া মজবুত করতে সাহায্য করে এবং চুল পড়া বন্ধ করতে যথেষ্ট পরিমাণে কার্যকরী আর তাই আপনি এটি অনায়াসে আপনার চুলের যত্নে ব্যবহার করতে পারেন । সাথে বাজারে কিনতে পাওয়া যায় আমলকী এই আমলকী রাতে ভিজিয়ে রেখে এর পানির সাথে জবাফুল বাটা একত্রে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন এবং পেস্ট টি আপনার মাথায় লাগান ৪৫ মিনিট রাখুন এভাবে প্রতি দশ দিন অন্তর আপনি একদিন মাথায় লাগাতে পারেন এভাবে কিন্তু আপনার চুলের গোড়া শক্ত হবে এবং চুল পড়া অনেকাংশে কমে যাবে প্রতিদিন ১০০ টি চুল পড়া স্বাভাবিক কিন্তু যদি এর চাইতে বেশী চুল পড়তে থাকে তাহলে অবশ্যই বুঝতে হবে এটা সমস্যার কারণে হচ্ছে সেসময় কিন্তু বাড়তি যত্নের প্রয়োজন ।

শারমিন সুলতানা



Similar Post You May Like