শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউট হচ্ছে বাংলাদেশের

2017-10-28 সরকার

সরকারি ব্যবস্থাপনায় একটি শিশু হাসপাতাল স্থাপন হচ্ছে এবং এই উপলক্ষে পরিবার এবং স্বাস্থ্য কল্যাণ মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যেই একজন ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগ করেছে।

এবং ঢাকার পূর্বাঞ্চলে হাসপাতাল তৈরি হবে বলে স্থান নির্বাচনের করা হয়েছে হাসপাতালটি স্থাপিত হবে ৩০ একর জায়গার উপর । স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ বলেন যে হাসপাতাল তৈরির উদ্দেশ্যে জায়গা সন্ধান এর কার্যক্রম চলছে তবে সেখানে বলা হয়েছে পূর্বাঞ্চলে যদি অবস্থান অনুসারে ৩০একর জায়গা পাওয়া না যায় সেক্ষেত্রে অন্য জায়গায় হাসপাতালটির স্থানান্তরিত হতে পারে।

সারাদেশে সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিক এবং হাসপাতাল রয়েছে কিন্তুএখন পর্যন্ত সাড়া দেশে বাংলাদেশের শিশুদের সেবার জন্য কোন শিশু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠিত হয় নাই সরকারিভাবে। আর সেই লক্ষ্যেই এ হাসপাতালটির কার্যক্রম চলছে তবে শিশুদের সেবার জন্য একটি হাসপাতাল রয়েছে সেটিও শতভাগ সরকারি নয় স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান।

গতবছরবাংলাদেশকলেজঅবফিজিশিয়ানসঅ্যান্ডসার্জনসদেরসমাবর্তনঅনুষ্ঠানেজাতীয়ওবিভাগীয়পর্যায়েশিশুহাসপাতালকরারনির্দেশনাদেনপ্রধানমন্ত্রীশেখহাসিনা।এর পূর্বে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে হাসপাতালের বহুবার আবেদন করা হয়েছিল কিন্তু তার বাস্তবায়ন হয়নি কিন্তু সম্প্রতিককালেশুধুমাত্র শিশুদের সেবা এবং পরিচর্যা এবং দুঃস্থ মানবতার সেবার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে শেখ হাসিনা তার নিজ কর্ম উদ্যোগে এবং কর্মতৎপরতার মাধ্যমে একটি শিশু হাসপাতাল স্থাপনের দিকে কড়া নজর রেখেছেন এবং আশা করা হচ্ছে যে আগামী ২০ সালের ভেতরে শিশুদের সেবার উদ্দেশ্য অত্যাধুনিক শিশু হাসপাতাল স্থাপিত হবে বাংলাদেশে।

এছাড়াও আরও একটি বিষয় পরিলক্ষিত হয়েছে যে সারা বাংলাদেশের হাসপাতাল এবং বেসরকারী হাসপাতাল ক্লিনিক যাই রয়েছে শিশুর পরিচর্যার জন্য তেমন কোনো বিভাগ খোলা হয় নাই কোন প্রতিষ্ঠানে।

Iআর তাই এই করুন পরিস্থিতি নিরসনে বর্তমান সরকার প্রাথমিকভাবে ঢাকার পূর্বাঞ্চলে একটি ১০০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের স্থাপনের পর পরবর্তী পরিকল্পনা অনুসারে তিনি বলেন প্রত্যেকটি বিভাগীয় শহরে শিশুদের পরিচর্যার জন্য আলাদা আলাদাভাবে শিশু হাসপাতাল এর জন্য অর্থ বরাদ্দ থাকবে।

প্রকল্পপরিচালকঅধ্যাপকআবদুলহানিফপ্রথমআলোকেবলেন,জননেত্রী শেখ হাসিনার অনুমতি অনুযায়ী কাজ শুরু করা হয়েছে। হাসপাতালে মেডিসিন থেকে শুরু করে সব রকম অত্যাধুনিক সেবা প্রক্রিয়াঠিক থাকবে যাতে শিশুদের সে হাসপাতালে এসে পর্যাপ্ত পরিমাণে যথেষ্ট সুযোগ সুবিধার সাথে সেবা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হয় ।



Similar Post You May Like