সাইবার সালীনতা রক্ষায় কাজ করছেন তারানা হালিম

2017-10-28 মাল্টিমিডিয়া

ডিজিটালাইজেশনে কাজ অগ্রগতি পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ইন্টারনেটভিত্তিক সুবিধাগুলো সহজলভ্য হচ্ছে, এতে করে শুধু যে সুফল বয়ে আনছে তা কিন্তু না।

এর কিছু কুফল ও পরিলক্ষিত হচ্ছে, দেখা যাচ্ছে যে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা ভাল কাজে ইন্টারনেট ব্যবহার করার পরিবর্তে তারা তাদের অশালীন মন মানুষিকতার বশে বিভিন্ন রকম পর্নোগ্রাফি ভিডিও দেখছে এতে করে সমাজের এবং তাদের ব্যক্তিগত জীবনের নৈতিকতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। অঙ্কুরেই বিনষ্ট হয়ে যাচ্ছে তাদের চারিত্রিক নৈতিক গুনাগুন ও বৈশিষ্ট্যসমূহ । আর এরই প্রেক্ষিতে সাইবার সালীনতা রক্ষায় কাজ করছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম । সাম্প্রতিক তিনি এক আলোচনা সভায় সকলের অবগতির জানান সাইবার সালীনতারক্ষার জন্য বিভিন্ন রকমের কার্যক্রম চলছে এবং বিভিন্ন রকমের প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই সাইবার সালীনতা রক্ষার বিষয়টি উপর কর্মকর্তারা তদারকি করছেন। বাংলাদেশ ডিজিটালাইজেশনের ধারা অব্যাহত রেখে কিভাবে সাইবার সালীনতা রক্ষা করা যায় এই বিষয়টি বিশেষভাবে তদারকি হচ্ছ। এপিটি সম্মেলনে এমনটাই জানান ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এবারের সম্মেলনের বিষয়বস্তু ছিল সাইবার নিরাপত্তা এবং সাইবার সালীনতা রক্ষা করা ।৮ম এপিটি সম্মেলন চলে তিন দিনব্যাপী ।এই সম্মেলনে বাংলাদেশসহ আরও ১৪ টি মত দেশ অংশগ্রহণ করে এবং তাদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে সাইবার নিরাপত্তা এবং সাইবার সালীনতা সম্পর্কিত বিষয় বিশ্লেষণ হয় এবং বিশ্লেষণ সাপেক্ষেই সকলে এই মন্তব্যে উপনীত হ্ন যে সাইবার ক্যাফে ব্যবহারের পাশাপাশি সকলকে কিছু নিয়মকানুনকে মানতে হবে এবং এই নিয়মকানুন মানার মাধ্যমে বিভিন্ন পর্নোগ্রাফির সহ বিভিন্ন অশালীন ভিডিও গুলো অবাধে প্রচার সম্পূর্ণরূপে বন্ধ থাকবে । সকলে ভাল কাজে সাইবার ক্যাফে ব্যবহার করতে পারবে কিন্তু অশালীন কোন কাজ করতে পারবে না সাইবার ক্যাফের মাধ্যমে । আশা করা হচ্ছে এই নিয়ম নীতির মাধ্যমে মার্কেটসহ বিভিন্ন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে শালীনতা বজায় থাকবে এবং বাংলাদেশে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থেকে ডিজিটালাইজেশনের পথ উন্মুক্ত হবে নানা যুগান্তকারী পদক্ষেপের মাধ্যমে।



Similar Post You May Like